মধ্যরাতে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার পরকীয়া ধরলেন স্ত্রী, ভিডিও ভাইরাল

মধ্যরাতে পরকীয়া প্রেমিকার সঙ্গে সময় কাটানোর সময় নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার এক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে হাতেনাতে ধরেছেন তার স্ত্রী।মঙ্গলবার (১৭ মে) এ-সংক্রান্ত দুটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।এর আগে ১০ মে (মঙ্গলবার) রাত ১২টায় সোনাইমুড়ীর নান্দিয়াপাড়া মধ্যবাজারে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ব্যক্তিগত কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

ওই স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার নাম শাহরিয়ার সবুজ। তিনি উপজেলার দেওটি ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক। তার স্ত্রীর নাম পিংকী আক্তার।খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দেওটি ইউনিয়নের রুহুল আমিন নগরের মিয়াজন পাটোয়ারী বাড়ির ইসমাইল হোসেনের ছেলে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শাহরিয়ার সবুজ প্রেম করে বিয়ে করেন পিংকী আক্তারকে। তাদের দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে। কিন্তু ব্যক্তিগত কার্যালয়টিতে বিভিন্ন তরুণীর সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্ক করে আসছেন সবুজ।

খবর পেয়ে মঙ্গলবার গভীর রাতে ওই কার্যালয়ে যান সবুজের সন্তানসম্ভবা স্ত্রী পিংকী। এ সময় একটি কক্ষ থেকে তিনি সালমা নামের ওই তরুণীসহ (২০) সবুজকে আটক করেন। পরে তাকে ওই তরুণীসহ কক্ষে থাকা লোকজনকে আটক করে মারধর করতে দেখা যায়।ভিডিওতে পিংকী আক্তারকে কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলতে শোনা যায়, ‘আমাকে ঘরে রেখে সালমাসহ বহু নারীর সঙ্গে সবুজের পরকীয়ার সম্পর্ক রয়েছে।

এসব নিয়ে গত ঈদের দিন তার (সবুজ) সঙ্গে তুমুল বাগবিতণ্ডাও হয়েছে। আমি অসুস্থ হয়ে ঘরে পড়ে থাকা অবস্থায় সে নিজের কার্যালয়ে অন্য নারী নিয়ে ফুর্তি করবে আমি সেটা কীভাবে মেনে নেবো। আমার বেঁচে থাকার আর শখ নাই।’এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শাহরিয়ার সবুজ মোবাইলে জাগো নিউজকে বলেন, ‘প্রতিপক্ষের লোকজন আমার স্ত্রীকে ভুল বুঝিয়ে কার্যালয়ে নিয়ে এসে গানের ছাত্রীকে দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে।

আমার স্ত্রীও না জেনে তাদের গায়ে হাত তুলেছে। বিষয়টি পরে মিটমাট হয়ে গেছে। গত ১২ মে আমার ছেলে হয়েছে। আমি ওর জন্য বাজার করছি। পরে কথা হবে।’সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুনুর রশিদ জাগো নিউজকে বলেন, এ ব্যাপারে থানায় কেউ অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.